বঙ্গবন্ধুর ৯৯ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন

গুরুকুলে বঙ্গবন্ধুর ৯৯ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপিত হয়েছে। স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি,বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯তম জন্ম বার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস যথাযথ মর্যাদায় পালিত হল তথ্যপ্রযুক্তিবিদ সুফি ফারুকের প্রতিষ্ঠান গুরুকুলে।

গুরুকুলে বঙ্গবন্ধুর ৯৯ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন - বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কুষ্টিয়া আবৃত্তি পরিষদের সভাপতি আলম আরা জুঁই বক্তব্য রাখছেন [ Cultural personality Alam Ara Jui says about Bangabandhu ]
বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কুষ্টিয়া আবৃত্তি পরিষদের সভাপতি আলম আরা জুঁই বক্তব্য রাখছেন
জাতির পিতার কর্ম এবং জীবনী নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠান, দোয়া মাহফিল এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে জন্মবার্ষিকী ও শিশুদিবসের অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয়।

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া শহর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি এড. গোলাম মওলা এবং কুষ্টিয়া আবৃত্তি পরিষদের সভাপতি আলম আরা জুঁই।

গুরুকুলের সহকারী পরিচালক রাকিবুজ্জামান তানিমের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন গুরুকুলের অধ্যক্ষ, সকল ট্রেড প্রধান, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী সহ শত শত শিক্ষার্থী।

গুরুকুলে বঙ্গবন্ধুর ৯৯ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন-Birth anniversary of Bangabandhu at Gurukul
আওয়ামিলীগ নেতা এড. গোলাম মওলা

আব্দুল্লাহ আল মাসুমের সঞ্চালনায় আমন্ত্রিত অতিথি আওয়ামিলীগ নেতা এড. গোলাম মওলা তার বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু এক বিশাল ব্যক্তিত্ব যার কথা ও অবদান আমরা কোনো দিন ভুলতে পারবো না, তিনি প্রবাসে সবাইকে দেশকে ভালোবাসতে ও বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত সোনার বাংলা গড়ার জন্য সবাইকে এক সাথে কাজ করতে আহ্বান জানান।

গুরুকুলে বঙ্গবন্ধুর ৯৯ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন
গুরুকুলে বঙ্গবন্ধুর ৯৯ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন

বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবন ও স্বাধীনতা আন্দোলন নিয়ে বক্তব্য রাখেন গুরুকুলের সহকারী পরিচালক জনাব রাকিবুজ্জামান তানিম। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু আমাদের সকলের, যার নেতৃত্বে আমরা স্বাধীন বাংলাদেশ পেয়েছি তাকে নিয়ে কোনো বিতর্ক থাকতে পারে না৷ তিনি হচ্ছেন সকলের উর্ধে মহান নেতা। জাতির জনক দীর্ঘকাল ৪৬৬২ দিন কারাবরন ও নির্যাতন সহ্য করে আমাদের স্বাধীনতা দিয়ে গেছেন, সেই মহান নেতাকে হারিয়ে জাতির যে ক্ষতি হয়েছে তা কখনো পূরণ হবার নয়।

বাঙালির প্রাণপুরুষ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ বইটি থেকে তিনি বিভিন্ন দিক তুলে ধরে আলোচনা করেন এবং উপস্থিত সকলকেই একবার হলেও বইটি পড়ার জন্য আহ্বান জানান৷

[ গুরুকুলে বঙ্গবন্ধুর ৯৯ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন ]

আরও পড়ুন:

জাতীয় শিশু দিবস

 

error: Content is protected !!